কুমিল্লার লাকসামে চাচিকে ধ’র্ষণের অভিযোগে মাসুদ রানা (২৮) নামক এক যুবককে পুলিশ গ্রে’প্তার করেছে। শুক্রবার দিবাগত রাত ১টায় উপজেলার নরপাটি দিঘীরপাড় মজুমদার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। রোববার (১৩ ফেব্রুয়ারি) ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে নারী ও শিশু নি’র্যাতন দমন আইনে লাকসাম থানায় মামলা দায়ের করলে তাৎক্ষণিক পুলিশ অভিযান চালিয়ে ধ’র্ষক মাসুদ রানাকে গ্রে’প্তার করে কুমিল্লা আদালতে পাঠায়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ওই গৃহবধূর স্বামী বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে মুদি দোকান দিয়ে ব্যবসা করে আসছেন। ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রক্ষণাবেক্ষণের সুবিধার্থে তিনি মাঝে মধ্যে দোকানে রাত্রিযাপন করেন। শুক্রবার রাতে তিনি বাড়িতে না ফেরায় ওই গৃহবধূ পুত্রসন্তানকে নিয়ে ঘরের দরজা-জানালা বন্ধ করে ঘুমিয়ে পড়েন। রাত আনুমানিক ১টার দিকে একই বাড়ির দূরসম্পর্কের ভাসুর সিরাজুল ইসলামের ছেলে মাসুদ রানা সুকৌশলে ঘরে প্রবেশ করে ওই গৃহবধূর গলায় ছু’রি ধরে ভয় দেখিয়ে টেনেহিঁচড়ে ঘরের বাইরে নিয়ে ধ’র্ষণ করে।

প্রায় পৌনে এক ঘণ্টা পর ওই গৃহবধূর আপন ভাসুরের ছেলে প্রতিবন্ধী জানে আলম প্র’স্রাব করতে ঘরের বাইরে গিয়ে এ ঘটনা দেখে চিৎকার করলে ধ’র্ষক মাসুদ রানা পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা অজ্ঞান অবস্থায় গৃহবধূকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসায় সুস্থ করে তোলে।

এ বিষয়ে ওই গৃহবধূ আজ লাকসাম থানায় নারী ও শিশু নি’র্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। অভিযোগ পেয়ে লাকসাম থানার এসআই মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল গিয়ে ধ’র্ষক মাসুদ রানাকে গ্রে’প্তার করেন।

লাকসাম থানার ওসি মো. নিজাম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে করে বলেন, গ্রে’প্তারকৃত ধ’র্ষক মাসুদ রানাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। গৃহবধূর ডাক্তারি পরীক্ষা করা হচ্ছে।