কুমিল্লার তিতাস উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আহাম্মদ ফকিরের ইয়াবা সেবনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে গেছে।

মঙ্গলবার সকালে ভিডিওটি ভাইরালের পর উপজেলায় সর্বস্তরের মানুষের মাঝে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় কয়েকজন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ফরহাদ ফকির একজন মাদকাসক্ত। তাকে দল ও চেয়ারম্যান পদ থেকে বহিষ্কার করা না হলে তিতাসে মাদক সমস্যা আরও বৃদ্ধি পাবে।

ইয়বা সেবনের ভিডিও ভাইরালের বিষয়ে ফরহাদ ফকির বলেন, বিষয়টি কোন কারণে হয়েছে। ভাই এসব নিয়ে না লিখলে হয় না!

তিতাস থানার ওসি সৈয়দ আহসানুল ইসলাম বলেন, ফরহাদ ফকিরের ইয়বা সেবনের ভিডিও আমি দেখেছি। তবে এ বিষয়ে কোন অভিযোগ পাইনি, তাই কোন মন্তব্য করব না।

কুমিল্লা-২ (হোমনা-তিতাস) আসনের সংসদ সদস্য সেলিমা আহমাদ মেরী বলেন, আমি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই বলে আসছি তিতাস-হোমনায় কোন মাদক থাকবে না। আর ভাইস চেয়ারম্যানের ইয়াবা সেবনের ভিডিও আমিও দেখেছি। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে তদন্ত করে জানানোর জন্য বলেছি। প্রমাণ হলে উপজেলা পরিষদ, জেলা প্রশাসন ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ব্যবস্থা নেবে।

কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আবু কাউসার অনিক জানান, ভিডিওটি সবার মতো আমিও দেখেছি। সেখানে আমার বলার কিছু নেই। তবে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বিষয়টি খতিয়ে দেখে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেবেন।

কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মু. রুহুল আমিন জানান, বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। যেহেতু বিষয়টি ছাত্রলীগের সেহেতু বাংলাদেশ ছাত্রলীগই তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: