ডেস্ক রিপোর্টঃ পাকস্থলীতে ৫ হাজার পিস ইয়াবা বহন করে পাচারের সময় দুজনকে আটক করেছে র‌্যাাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন ১১। আজ বৃহস্পতিবার কুমিল্লা রেলওয়ে স্টেশন থেকে র‍্যাব ১১ কুমিল্লা ক্যাম্প ও ক্রাইম প্রিভেনশন স্পেশাল কম্পানির যৌথ অভিযানে তাদের আটক করে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব ১১, কুমিল্লা ক্যাম্প এর স্কোয়াড কমান্ডার সহকারী পুলিশ সুপার মহিতুল ইসলাম।

বিজ্ঞাপন

আটককৃতরা হলো নাটোর জেলার চকবদিনাথ গ্রামের মৃত বাবুল আহমেদের পুত্র হেলাল উদ্দিন (৩৪) ও নিলফামারী জেলার ডোমরা থানার বাগভোগায়া গ্রামের আবদুর রহিমের পুত্র আলমগীর (৩১)।

কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজের আবাসিক চিকিৎসক ডা. আবদুল আউয়াল সোহেল জানান, প্রথমে তাদের দুজনের এক্স-রে করে নিশ্চিত হই তাদের পেটে পোটলার ন্যায় কিছু আছে এবং পরে তাদের চিকিৎসার মাধ্যমে ছোট ছোট পোটলা বের করতে সক্ষম হই।

র‍্যাব ১১, কুমিল্লা ক্যাম্প কমান্ডার মেজর তালুকদার নাজমুছ সাকি বলেন, এটি ছিল র‍্যাব ১১-র দুটি ইউনিটের যৌথ অভিযান। আমরা কুমিল্লাতে তাদের শনাক্ত করতে সমর্থ হই। তারা টেকনাফ মাদক বহন করে মহানগর গোধূলী ট্রেনে কুমিল্লা রেলওয়ে স্টেশনে এসে নামে। তার পর সুনির্দিষ্ট গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে তাদের আটক করা হয়। তাদের দুজনের পাকস্থলীতে প্রায় ৫ হাজার পিস ইয়াবা আছে বলে জানা যায়। এক্স-রে’র মাধ্যমে মাদকের অস্তিত্ব টের পাওয়া যায়। পরে বিশেষ পদ্ধতিতে তাদের পেট থেকে মাদক বের করা হয়। এই প্রক্রিয়ায় কিছু ইয়াবা ডাস্ট বা গুঁড়ো হয়ে যায়। শেষ পর্যন্ত ৪৬০০ পিস ইয়াবা জব্দ ও তাদের দুজনকে আটক করা হয়। জব্দকৃত ইয়াবার মূল্য ১৫ লাখ টাকা।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: