কুমিল্লা দাউদকান্দি উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের ভাউরিয়া গ্রামের আলু ব্যবসায়ী মোস্তাক ও আবু তাহেরের বাড়িতে মঙ্গলবার গভীর রাতে ডা’কাতির ঘটনা ঘটে। ডাকাত দল পালিয়ে যাওয়ার সময় তাদের গাড়ির চাপায় হান্নান (৩২) নামের একজন নি’হত হয়েছে। নি’হত হান্নান ওই গ্রামের মৃ’ত আজিজ মিয়ার ছেলে।

এলাকা সূএে জানা যায়, ডা’কাত দল অ’স্ত্রের মুখে জি’ম্মি করে হাত-পা বেঁধে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লু’ট করে নিয়ে যায়। এ সময় বাড়িতে থাকা নারী-পুরুষের আ’ত্মচিৎকারে আশেপাশের বাড়ির লোকজন ডা’কাতদের ধাওয়া করলে সংঘবদ্ধ ডা’কাত দল পিকআপ করে পালিয়ে যাওয়ার সময় তাদের গাড়ির চাপায় ঘটনাস্থলে হান্নান (৩২) নামের ১ নি’হত হয় ও আরো ৭ জন আ’হত হয়।

আ’হতরা হলো, একই গ্রামের দুলাল রাঢ়ী, মোবারক রাঢ়ী, আবু তাহের, ঈমান হোসেন, জামাই হাসেম, মনোয়ারা বেগম ও রেখা বেগম। আ’হতদের মধ্যে ৪ জনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে জরুরি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্ত আবু তাহের বলেন, মঙ্গলবার রাত তিনটায় ১০/১২ জন মুখোশ পড়া লোক ঘরের দরজার সামনে জোরে কথা বলার আওয়াজ শুনে আমার স্ত্রী দরজা খুলে ডা’কাতরা সাথে সাথে ঘরে ডুকে রাম’দা ও ছু’রি ধরে আমার হাত পা বেধেঁ স্ত্রী রিনা বেগম, মেয়ে আমরি আক্তার ও মেয়ের জামাই আরিফকে মা’রধর করে জমি বিক্রীর চার লাখ টাকা ও স্বর্ণের চেইন কানের জিনিস নিয়ে যায়। ডা’কাতের লাঠির আঘাতে আমার ডান হাত ভেঙ্গে গেছে।

দাউদকান্দি থানার পুলিশ সুপার বলেন, আমরা সকালে ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করেছি। এব্যাপারে পিবিআইসহ আমাদের একাধিক টিম মাঠে কাজ শুরু করেছে এবং দাউদকান্দি মডেল থানায় মামলার করা হয়েছে।