ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) একমাত্র ছাত্রীনিবাস নওয়াব ফয়জুন্নেছা চৌধরাণী হলের আসন বণ্টন নিয়ে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। শিক্ষার্থীদের আসন নিজের ইচ্ছামতো বণ্টন করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে হলে অবস্থানরত শাখা ছাত্রলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক আইভী রহমানের বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন হলের আবাসিক ছাত্রীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মঙ্গলবার রাতে হলের নিচতলার থাকা ছাত্রীদের কক্ষ ছেড়ে দিয়ে ৫ তলায় যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আইভী রহমান। ঐ সকল শিক্ষার্থীর এখন পরীক্ষা চলমান। ‘রাজনীতিক ভীতির’ কারণে কারও কাছে অভিযোগ দিতেও ভয় পাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী ছাত্রীরা। আবার সিট পরিবর্তন করাও বেশ ঝামেলার কাজ। এ নিয়ে বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে রয়েছেন ছাত্রীরা।

হল সংশ্লিষ্ট এক সূত্র জানায়, হলটির প্রাধ্যক্ষ জিল্লুর রহমান গত ০১ জুন থেকে শিক্ষা ছুটিতে থাকায় নিজের ইচ্ছামতো হলে কর্তৃত্ত্ব চালাচ্ছেন ছাত্রলীগ নেত্রী আইভী।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আইভী রহমান প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে বলেন, ‘হলে ছাত্রলীগের সিট আমি আমার মতো বণ্টন করবো। এগুলো আমার সিট, আমার এখতিয়ারেই চলবে। সাধারণ সিট নিয়ে আমার কোনো কথা নাই। ছাত্রলীগ যেহেতু করি, সরকারি দল ক্ষমতায় আছে, সো ছাত্রলীগের এখতিয়ারে হল চলবে না? অবশ্যই চলবে।’

এ বিষয়ে হল প্রশাসনের যারা আছেন তাদের কোনো মতামত থাকে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘হল প্রশাসনের মতামত নিয়েই আমি সিট বণ্টন করি।’

হল প্রশাসন এ বিষয়ে কিছুই জানেন না বললে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন, ‘না জানলে না জানুক। আমি ছাত্রলীগ নেত্রী। আমি আমার হলে আমার ইচ্ছেমতো সিট বণ্টন করবো। লিখবেন তো, লিখে দেন।’

এ বিষয়ে হলের হাউজ-টিউটর মো: সাদেকুজ্জামান জানান, ‘বর্তমানে হলের প্রাধ্যক্ষ নেই এবং ভারপ্রাপ্ত দায়িত্বও কাউকে দেওয়া হয়নি। তাই এই বিষয়ে আমি কোনো সিদ্ধান্ত দিতে পারবো না। তবে হল প্রশাসন ছাড়া কোনো শিক্ষার্থী আসন বণ্টন করতে পারেন না। এ ব্যাপারে আমাদের কাছে সরাসরি কোনো অভিযোগ আসেনি। আমি আমার অন্যান্য সহকর্মীদের (হাউজ টিউটর) বিষয়টি জানাবো।’

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: