কুমিল্লা-৮ (বরুড়া) সংসদীয় আসনের সাবেক সংসদ সদস্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিশ্বস্ত সহচর, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাকিম এমপি ২০১৪ সালে (২৩ শে মার্চ) ঢাকার একটি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে আবদুল হাকিমের বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। তিনি তিন ছেলে ও তিন মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। মরহুম আবদুল হাকিমের মেজু সন্তান কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট কামরুল ইসলাম। সর্ব কনিষ্ঠ পুত্র সন্তান বরুড়া উপজেলার বর্তমান চেয়ারম্যান মঈনুল ইসলাম।

আবদুল হাকিম (এমএ) সর্বশেষ ১৯৯৬ সালে জাতীয় নির্বাচনে তিনি আওয়ামীলীগ দলীয় মনোনয়ন নিয়ে কুমিল্লা-৮ (বরুড়া) আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। আটবার নৌকা প্রতীক তথা আওয়ামীলীগের প্রতিনিধিত্ব করে এ আসন থেকে চারবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। এছাড়া ১৯৭০ সালে তিনি প্রাদেশিক পরিষদের সরকারের সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।

ছাত্রজীবন থেকে তিনি আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। ১৯৭১ সালে তিনি মহান স্বাধীনতাযুদ্ধে অংশ নেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর ছিলেন। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি বরুড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতির পদে দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি বরুড়া উপজেলার বাগমারা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম সৈয়দ অালী বেপারী। তিনি জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত সাদা পাঞ্জাবি গায়ে দিয়ে সাধারণভাবে ঘুরে বেরিয়েছেন বরুড়ার এক প্রান্ত থেকে অারেক প্রান্তে।

নিজ হাতে সরাসরি তিনি বরুড়া শহীদ স্মৃতি সরকারি কলেজ, বরুড়া সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, রেহানা কারিগরি কলেজ, বেগম জহিরা মহিলা কলেজ, বাগমারা হাফিজিয়া মাদ্রাসা, বাগমারা প্রাথমিক বিদ্যালয়, উপজেলা পরিষদ, বহু স্কুল ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, রাস্তাঘাট, বিদ্যুতায়ন ইত্যাদি সমাজকর্মে অবদান রেখেছেন। তিনি একজন অাদর্শবান শিল্পপতি ছিলেন।

আজ (২৩শে মার্চ) রবিবার মরহুম আব্দুল হাকিমের ষষ্ট মৃত্যুবার্ষিকী। মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আজ নিজবাড়িতে দোয়া ও মিলাদের আয়োজন করা হয়েছে।