কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হামলায় দুই জন আহত হয়েছে । এ সময় বাড়ি-ঘর ভাংচুরেরও অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঈদের দিন বিকেলে উপজেলার চান্দলার চরের পাথর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী ও আহতদের সূত্রে জানা গেছে, ঈদের দিন বিকেলে উপজেলার চান্দলার চরের পাথর এলাকায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হামলায় চরের পাথর গ্রামের মৃত মুর্শেদ মিয়ার ছেলে শুক্কুর (১৮) ও তার মা রহিমা (৪০) আহত হয়। এসময় তাদের বাড়ি-ঘর ভাংচুর করে হামলাকারীরা।

আহত শুক্কুর জানান, ঈদের দিন বিকালে বাড়ির পাশের রাস্তায় একই গ্রামের মৃত ফরিদ মিয়ার ছেলে সুমন মিয়াকে কথা প্রসঙ্গে বোকা বলায় সুমন মিয়া রেগে গিয়ে শুক্কুরের ওপর হামলা চালায়। এ সময় সুমন মিয়ার পক্ষ নিয়ে সুমন মিয়ার ভাই সোহেল, রুমান ও তার চাচাতো ভাই স্বপন মিয়ার ছেলে সাগরও তার ওপর হামলা চালায়। শুক্কুরের চিৎকার শুনে তার মা রহিমা বেগম এগিয়ে এলে হামলাকারীরা তাকেও মারধর করে, এবং হামলাকারী সুমনের চাচাতো ভাই মৃত সুরুজ মিয়ার ছেলে হাবিবের নেতৃত্বে আহতদের বাড়ি-ঘর ভাংচুর করে। এ সময় ঘরে রাখা নগদ অর্থ লুটেরও অভিযোগ করেন আহতদের পরিবার। পরে আহতদেরকে এলাকাবাসীরা উদ্ধার করে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। আহতরা বর্তমানে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ব্যাপারে মৃত ফরিদ মিয়ার স্ত্রী অভিযুক্ত সুমনের মায়ের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করলে তিনি এ বিষয়টি ্এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। তিনি হামলার ঘটনাকে মিথ্যা বলে অভিহিত করেন।
এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলা পক্রিয়াধীন রয়েছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: