কিছুদিনের মধ্যেই কুমিল্লার মুরাদনগরে পুরোদমে বোরো ধান কাটা মাড়াই শুরু হবে। কিন্তু চলমান করোনা পরিস্থতিতে ধান কাটা মাড়াইয়ে শ্রমিক সংকট দেখা দিতে পারে। তাই ক্ষেতের ধান ঘরে তোলা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন কৃষক। এ অবস্থায় কৃষকদের মাঝে সরকারি ৫০ শতাংশ ভর্তুকি মূল্যে কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন বিতরণ করেছে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। কৃষকের সুবিধার কথা চিন্তা করে স্থানীয় সংসদ সদস্য ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন এফসিএ’র নিজস্ব তহবিল থেকে বাকি ৫০ শতাংশ ভর্তুকি পরিষদ করেন।

বুধবার দুপুরে উপজেলা পরিষদে স্থানীয় দুই জন কৃষকের মাঝে দুটি কম্বাইন্ড হারভেস্টার মেশিন বিতরণ করা হয়।

এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিতি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অভিষেক দাশ, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাইন উদ্দিন আহমেদ, উপ-সহকারী কর্মকর্তা সুফি আহম্মেদ, কুমিল্লা জেলা পরিষদের সদস্য ভিপি জাকির হোসেন, নজরুল ইসলাম, উপজেলা সদরের ইউপি সদস্য আক্তার হোসেন, কুমিল্লা উত্তর জেলা শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি আহসান হাবিব শামীম, উত্তর জেলা কৃষকলীগের সদস্য হেলাল উদ্দিন চৌধূরী, উপজেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক মোঃ রুহুল আমিন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফুল ইসলাম সাহেদ, উপজেলা শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি কেএম শারফিন শাহ্, যুবলীগের সদস্য জহিরুল ইসলাম জুয়েল, বাঙ্গরা বাজার থানা কৃষকলীগের আহবায়ক আবু মুসা আল কবির, মুরাদনগর থানা কৃষকলীগের যুগ্ম আহবায়ক মাহফুজুর রহমান বাকির, মোঃ হাসান মিয়া, উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক ফয়সাল আহাম্মেদ নাহিদ প্রমুখ।

উপজেলা কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা যায়, কৃষি মন্ত্রণালয়ের পরিচালনা বাজেটের আওতায় উন্নয়ন সহায়তার (সরকারি ভর্তুকি) মাধ্যমে ও স্থানীয় এমপির ভতুর্কিতে কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন পাওয়া ওই দুই কৃষক হলেন- উপজেলার কাজিয়াতল গ্রামের কামাল উদ্দিন খন্দকার ও ভূবনঘর গ্রামের আবিদ আলী।

বিতরণ করা একটি কম্বাইন হারভেস্টার মেশিনের মূল্য ২৮ লাখ টাকা ও একটি কম্বাইন মেশিনের মূল্য ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা। যার ৫০ শতাংশ সরকার ও বাকি ৫০ শতাংশ স্থানীয় এমপি ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন এফসিএ’র নিজস্ব তহবিল থেকে ভর্তুকি পরিষদ করেন। এ মেশিন দিয়ে ধান কাটা, ঝাড়া, মাড়াই ও বস্তায় ভরা যাবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: