কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানাধীন মেটংঘর এলাকায় প্রতিবেশীকে সম্পত্তি নিয়ে মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে সহযোগিতা করার অভিযোগে এক বৃদ্ধকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। বুধবার সকালে উপজেলার মেটংঘর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। নিহত হাবিজ মিয়া(৬৫) মেটংঘর গ্রামের মৃত রহমানের ছেলে।

এঘটনায় নিহতের ছেলে লিটন মিয়া বাদী হয়ে বাঙ্গরা বাজার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। এই মামলার এজাহার নামীয় অন্যতম আসামী মহিউদ্দিন (৩০)কে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে মেটংঘর গ্রামের তার বাড়ি থেকে আটক করে পুলিশ। আটককৃত আসামি একই গ্রামের সূর্য মিয়ার ছেলে।

মামলার বিবরণে জানা যায় উপজেলার মেটংঘর গ্রামের মহিউদ্দিন ও একই গ্রামের শিবু ঠাকুরের সাথে সম্পত্তির দন্দ নিয়ে আদালতে মামলা চলমান রয়েছে। মহিউদ্দিনের বিরুদ্ধে মামলায় শিবু ঠাকুরকে সহযোগিতার অভিযোগ এনে লিটন মিয়া ও তার পিতা হাবিজ উদ্দিনকে বিভিন্ন সময় হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছিলো এই মহিউদ্দিন। এরই জের ধরে গত ৩ নভেম্বর বুধবার সকালে লিটনের ভাবি শাহিদা বেগমকে মারধর করে মহিউদ্দিন। এরপর মহিউদ্দিনকে পুত্রবধূকে মারধরের কারন জিজ্ঞেস করার উদ্দেশ্যে বের হয়ে মেটংঘর গ্রামের বাচ্চু মিয়ার মুদি দোকানের সামনে আসা মাত্রই সেখানে পূর্ব থেকে অবস্থান করা মহিউদ্দিন কাঠের লাঠি দিয়ে হাবিজ মিয়াকে মাথা এবং শরীরে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। তার শোর-চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে তার অবস্থার আরো অবনতি হলে তাকে ঢাকার মাতুয়াইল ফ্রেন্ডশিপ স্পেশালিস্ট হসপিটালে নিয়ে যায় তার স্বজনরা। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার বিকেলে তিনি মৃত্যুবরন করেন।

এ ব্যাপারে বাঙ্গরা বাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন আটককৃত আসামিকে শুক্রবার দুপুরে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে কুমিল্লা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: