নিজস্ব প্রতিবেদকঃ কুমিল্লায় বৈশাখী পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গভীর খাদে পড়ে পানিতে তলিয়ে যায়। বুধবার বিকাল পৌনে ৪টার দিকে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের জেলার দেবিদ্বার উপজেলার বাড়েরা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ, হাইওয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট দুর্ঘটনাস্থলে গিয়ে রেকার দিয়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করে এবং সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে দুর্ঘটনা কবলিত বাসটি টেনে তোলা হয়। স্থানীয়দের সহায়তায় যাত্রীরা গাড়ি থেকে বের হতে সক্ষম হওয়ায় বড় ধরনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি। তবে কুমিল্লা সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়কে প্রায় ৪ঘন্টার যানযট সৃষ্টি হয়ে যাত্রীদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হয়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, যাত্রী নিয়ে বাসটি জেলার মুরাদনগর উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে রওয়ানা করেছিল। কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের জেলার দেবিদ্বার উপজেলার বাড়েরা এলাকায় আসার পর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পার্শ্বের একটি গভীর খাদে পড়ে যায়। এসময় স্থানীয় এলাকার লোকজন উদ্ধার কাজে এগিয়ে আসে। দুর্ঘটনার প্রায় দেড় ঘন্টা পর ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট ও ডুবুরীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে এবং ফায়ার সার্ভিস, থানা ও হাইওয়ে পুলিশ ২টি রেকার নিয়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে দুর্ঘটনা কবলিত বাসটি ওই খাদ হতে উপরে টেনে তোলা হয়।

দেবিদ্বার থানার ওসি মিজানুর রহমান জানান, গাড়ির ভেতরে ২৫/৩০ জন যাত্রী থাকলেও স্থানীয়দের সহায়তায় যাত্রীরা গাড়ি থেকে বের হতে সক্ষম হওয়ায় বড় ধরনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি। এই রির্পোট লিখা পর্যন্ত কুমিল্লা ফায়ার সার্ভিসের ডিএডি উপ সহকারী পরিচালক ফরিদ আহম্মেদ জানান, গাড়ির ভেতরে লাশ না থাকলেও সড়কের পাশে ওই গভীর খাদে লাশ থাকার আশংকায় তল্লাশী চালানো হবে। এর আগে দুর্ঘটনার পর স্থানীয়রা এক ছেলে শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে। আহত অবস্থায় ১০ জনকে দেবিদ্বার উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: