মালয়েশিয়াতে একটি কক্ষ থেকে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার বাকশীমূল গ্রামের মোঃ মনির হোসেন (২৪) নামের এক যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে ওই দেশের পুলিশ।

শনিবার বাংলাদেশ সময় সকাল ৭টার দিকে তার মৃত্যুর বিষয়ে জানতে পারে নিহতের পরিবার। বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেন নিহতের মা ও ভাই মোঃ মান্নান।

নিহত মনির হোসেন উপজেলার বাকশীমূল ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও মেম্বার প্রয়াত মোঃ লিয়াকত আলীর বড় ছেলে।

পরিবারের সূত্রে জানা যায়, মোঃ মনির হোসেন পাঁচ বছর আগে পরিবারের অভাব অনাটন দূর করতে মালয়েশিয়া ইপোহ নামক শহরে একটি কোম্পানিতে শ্রমিক ভিসায় কাজ করতে যান। পাঁচ বছর ধরে ওই কোম্পানিতে বেশ সুনামের সাথে কাজ করে আসছেন তিনি। বিদেশ যাওয়ার কয়েক বছর পর তার পিতা সাবেক ইউপি মেম্বার লিয়াকত আলী মারা যান। তার বাবা চলে যাওয়ার পর পরিবারের অভাব অনাটন আর দূর হয়নি। পরিবারের অভাব কিছুটা দূর হলে আগামী বছরে বাড়িতে আসার কথা ছিল কিন্তু এর আগেই পরপারে চলে গেলেন তিনি।

তারা বলেন, শনিবার সকাল ৮টার দিকে মনির হোসনের মালয়েশিয়ার এক বন্ধু তার মায়ের কাছে মোবাইলফোনে কল করে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন। ওই বন্ধু জানায়, মনির হোসেনের লাশ ফ্যানের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গেছে। তবে পরিবারের দাবি এটি আত্মহত্যা নয়, পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

এদিকে পরিবারের বড় ছেলেকে হারিয়ে শোকে কাতর মা, স্ত্রী, সন্তান ও ছোট ভাই মোঃ মান্নান। তার মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

নিহতের ছোট ভাই মান্নান বলেন, আমার ভাইকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। আমার ভাই শুক্রবার রাত ১১টার সময় আমাদের সবার সাথে কথা বলেছে। কিন্তু কোনো সমস্যার কথা বলেনি। তাকে পরিকল্পিতভাবেই হত্যা করা হয়েছে।

জানা গেছে, মনির হোসেনের স্ত্রী ও দুই শিশু মেয়ে সন্তান রয়েছে। মালয়েশিয়ার সকল প্রবাসীর ও প্রশসানের নিকট মনির হোসেন হত্যা নাকি আত্মহত্যা সঠিকভাবে তদন্ত করে বিচার দাবি জানান নিহতের পরিবার। পরিবারে হাল ধরে রাখার একমাত্র মাধ্যম বড় ছেলেকে হারিয়ে মনিরের মা প্রায় বাকরুদ্ধ হয়ে আছেন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: