কে হচ্ছেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭ম উপাচার্য?

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরীর মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ৩১ জানুয়ারি। এই মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই কে হচ্ছেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরবর্তী উপাচার্য এ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় অঙ্গনে শুরু হয়েছে আলোচনা। বিশ্ববিদ্যালয়টি রাজধানী ঢাকার নিকটবর্তী হওয়ায় এই বিশ্ববিদ্যালয় এখন অনেকের পছন্দের তালিকায় শীর্ষে।

উপাচার্য হওয়ার জন্য ইতোমধ্যেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা শিক্ষা মন্ত্রণালয়, ইউজিসি, প্রধানমন্ত্রীর দফতরসহ বিভিন্ন জায়গায় লবিং তদবির শুরু করছেন। বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব পাচ্ছেন নাকি উপাচার্য পদে আসছে নতুন কোনো মুখ তা নিয়ে চলছে আলোচনা।

২০০৬ সালে প্রতিষ্ঠার পর বিশ্ববিদ্যালয়টিতে এ পর্যন্ত ছয়জন উপাচার্য নিয়োগ পেয়েছেন। তবে বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী ব্যতীত বাকি সব উপাচার্যের শেষ সময়েই ক্যাম্পাস শিক্ষক আন্দোলনে উত্তপ্ত ছিল। একমাত্র বর্তমান উপাচার্যই নির্বিঘ্নে তার প্রথম পর্যায়ের মেয়াদ শেষের পথে রয়েছেন।

তবে উপাচার্য পদের মেয়াদের শেষ সময়ে এসে কে হচ্ছে কু্মিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭ম উপাচার্য তা নিয়ে শুরু হয়েছে নানা ঝল্পনা-কল্পনা। বর্তমান উপাচার্য পুনরায় নিয়োগ পেতে পারেন বলে গুঞ্জন রয়েছে। এর পাশাপাশি উপাচার্য পদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কয়েকজন অধ্যাপকের নাম ও আলোচনায় রয়েছে।

গুঞ্জন রয়েছে, উপাচার্য হওয়ার দৌঁড়ে রয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক ড. আফম আব্দুল মঈন, ঢাবির সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ও বেগম রোকেয়া হলের প্রভোস্ট ড. জিনাত হুদাসহ বেশ কয়েকজন ঢাবি অধ্যাপক। এছাড়াও এই পদে আলোচনায় রয়েছেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান উপ-উপাচার্য ও ঢাবি শিক্ষক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, বিশ্ববিদ্যালয়টির ট্রেজারার ও ঢাবি শিক্ষক ড. মো. আসাদুজ্জামান।

বেশ কয়েকটি সূত্রে জানা যায়, এ তালিকা হতেই যেকোনো একজনকে উপাচার্য পদে নিয়োগ দেওয়া হবে। তবে এ সপ্তাহেই উপাচার্য পদে কে আসছে তা চূড়ান্ত হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে উপাচার্য পদে কে আসছেন তা নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টি চলছে নানা ঝল্পনা-কল্পনা। শিক্ষক- শিক্ষার্থীদের মধ্যে আলোচনা চলছে পরবর্তী চার বছরের জন্য কে হবে তাদের অভিভাবক তা নিয়েই। শিক্ষার্থীদের দাবি, যিনি শিক্ষার্থীদের পাশে থাকবেন, শিক্ষার্থী বান্ধব সিদ্ধান্ত নিবেন এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সবাইকে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে কাজ করবেন তাকেই যেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক শিক্ষক নেতা বলেন, সরকার যাকে যোগ্য মনে করবেন তাকেই নিয়োগ দিবেন তবে যেই উপাচার্য হবেন তিনি শিক্ষক-শিক্ষার্থীবান্ধব হবেন এবং বিশ্ববিদ্যালয়কে আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরিত করবেন এমনটাই প্রত্যাশা।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ৩১ জানুয়ারী কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে যোগদান করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণরসায়ন ও অণুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী। রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলরের আদেশক্রমে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০০৬ এর ১০ (১) উপধারা অনুযায়ী তাকে চার বছরের জন্য উপাচার্য পদে নিয়োগ দেওয়া হয়।

     আরো পড়ুন....

পুরাতন খবরঃ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  

ফেসবুকে আমরাঃ