মুরাদনগর প্রতিনিধিঃ কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার টনকি ইউনিয়নের চৈনপুর গ্রামে রাতের অন্ধকারে জমি দখলের চেষ্ঠার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় একদল ভূমি দস্যুর বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার রাতে ওই জমিতে স্থাপনা নির্মাণ কালে দুই জনকে আটক করেছে পুলিশ। এ নিয়ে ভুক্তভোগী জমির মালিক শারফিন শাহ বাঙ্গরা বাজার থানা সহ বিভিন্ন স্থানে অভিযোগ দাখিল করেছেন।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, চৈনপুর মৌজার, আরএস খতিয়ান নং-১০, বিএস খতিয়ান নং-৮৯০ এর সাবেক দাগ নং- ১৪৫৩ ও বর্তমান দাগ নং-১৭৭৮ এর ৩০ শতাংশ জমি ২০১৫ সালে নগরপাড় গ্রামের মৃত জায়েদ হোসেনের ছেলে মনির হোসেনে মুরাদনগর সদরের মৃত আবুল কাশেমের ছেলে শারফিন শাহ্রে কাছে বিক্রি করে। এর পর থেকে শারফিন শাহ্ ক্রয় সূত্রে ওই জমির মালিকানা লাভ করে ভোগ দখল করিতেছেন। চৈণপুর গ্রামের শাহজাহান মোল্লার ছেলে জামির হোসেনের নেতৃত্বে স্থানীয় একদল ভূমি দস্যু ওই জমিটি অনেক দিন থেকে দখল করার চেষ্ঠা করছিল। এরই অংশ হিসেবে বৃহস্পতি বার রাতে চক্রটি জমিটির উপর স্থাপনা নির্মাণের চেষ্ঠা করলে শারফিন থানায় অভিযোগ করলে বাঙ্গরা বাজার থানার এসআই নূরুল আলমের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনারস্থলে অভিযান চালিয়ে ভূমি দস্যুর মূলহোতা জামির হোসেনকে আটক করে ও স্থাপনা নির্মাণ বন্ধ করে দেয়।

এ বিষয়ে জমির মালিক শারফিন শাহ্ বলেন, এই সম্পত্তি আমি ক্রয় সূত্রে মালিকানা লাভ করেছি। এর আগেই ওই চক্রটি আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্থানে অভিযোগ করেছিল। কিন্তু আমার কাগজ পত্রের বৈধতা থাকায় রায় আমার পক্ষে এসেছে। বৈধ ভাবে কিছু করতে না পারায় চক্রটি অবৈধ ভাবে রাতের আধারে স্থাপনা নির্মাণ করার চেষ্ঠা করেছিল।